ইউটিউব দেখে পিস্তল বানিয়ে পছন্দের মেয়ের প্রেমিককে গুলি

ইউটিউব দেখে পিস্তল বানিয়ে পছন্দের মেয়ের প্রেমিককে গুলি

সারাবাংলা ডেস্কঃ



পছন্দের মেয়ের সঙ্গে নূর মোহাম্মদ নামে একটি ছেলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এতে ভীষণ ক্ষিপ্ত হন সীমান্ত এবং নূর মোহাম্মদকে শিক্ষা দেওয়ার পরিকল্পনা করেন!

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার জয়রা এলাকায় মাসুদুর রহমানের ছেলে তৌফিকুর রহমান সীমান্ত (২৪) সৃজনশীল যুবক হিসেবেই পরিচিত। ছবি আঁকা, ইন্টেরিয়র ডিজাইনসহ বিভিন্ন সৃজনশীল কাজে দারুণ দক্ষতা তার। তিনি পছন্দ করতেন নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া একটি মেয়েকে। কিন্তু মেয়েটির সঙ্গে এহিয়া হোসেন মির্জা ওরফে নূর মোহাম্মদ (১৬) নামে একটি ছেলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এতে ভীষণ ক্ষিপ্ত হন সীমান্ত এবং নূর মোহাম্মদকে শিক্ষা দেওয়ার পরিকল্পনা করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ইউটিউব দেখে কম খরচে-সহজে পিস্তল বানানোর কৌশল রপ্ত করে পিস্তল ও গুলি বানিয়ে ফেলেন সীমান্ত। পরে গত শনিবার (৮ মে) রাতে মানিকগঞ্জ শহরের এলজিইডি অফিসের পাশে ডেকে নিয়ে নিজের তৈরি পিস্তল দিয়ে নূর মোহাম্মদকে গুলি করেন তিনি। 

মানিকগঞ্জ সদর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নূর মোহাম্মদকে উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাভারের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গুলিটি তার গলায় বিদ্ধ হয়েছে। 

ভাস্কর সাহা বলেন, রাতেই অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত সীমান্তকে তার নানাবাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে সে অপরাধের কথা স্বীকারও করেছে। এই ঘটনায় বাদী হয়ে নূর মোহাম্মদের মা নূরজাহান বেগম একটি মামলা দায়ের করেছেন। পাশাপাশি পুলিশের পক্ষ থেকেও একটি মামলা করা হয়েছে। রবিবার দুপুরে সীমান্তকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।