উল্লাপাড়ায় তৃতীয় লিঙ্গে রুপান্তরের ফলে গ্রাম ছাড়ার নির্দেশ; দুই গ্রাম্য মাতব্বর গ্রেফতার

উল্লাপাড়ায় তৃতীয় লিঙ্গে রুপান্তরের ফলে গ্রাম ছাড়ার নির্দেশ; দুই গ্রাম্য মাতব্বর গ্রেফতার

উল্লাপাড়া ডেস্কঃ



হরমোনজনিত সমস্যা কারণে তৃতীয় লিঙ্গে (হিজড়া) রুপান্তরত হওয়ার ফলে মনিরুল ইসলামের পরিবারকে গ্রাম ছাড়ার ঘোষনা দেওয়ায় দুই মাতব্বরকে গ্রেপ্তার করেছে উল্লাপাড়া মডেল থানা পুলিশ।

এরা হলেন, মোঃ মঞ্জু (৫২) ও মেছের আলী (৫৫)। এরা দুজইন উপজেলার চর ঘাটিনা গ্রামের বাসিন্দা। 

এই গ্রামে হাফেজ মিস্ত্রির ছেলে মনিরুল ইসলাম প্রাকৃতিকভাবে পুরুষ থেকে তৃতীয় লিঙ্গে রুপান্তরিত হয়। এই রুপান্তরের পর মনিরুলের আচার আচরণ, কথাবার্তা সবই হিজড়াদের মতো হয়ে যায়। আর এতে ক্ষুব্ধ হন চর ঘাটিনা গ্রামের বেশ কয়েকজন মাতব্বর। তারা সম্মিলিতভাবে কয়েকদিন আগে মনিরুলের পুরো পরিবারকে বাড়ি ঘর ভেঙ্গে নিয়ে ১ মাসের মধ্যে গ্রাম ছেড়ে চলে যাবার নির্দেশ দেন। এ ব্যাপারে মনিরুল ও তার ভাই মজনু মিয়া মাতব্বরদেরকে গ্রামে থাকতে দেবার অনুরোধ করলে তারা তাতে সম্মত হননি। উপরোন্ত তাদেরকে লাঞ্ছিত ও মারধর করেন। 

নিরুপায় হয়ে গত ২৭ এপ্রিল মঙ্গলবার মনিরুলের ভাই মজনু মিয়া বাদি হয়ে ১১ জন মাতব্বরের নামে উল্লাপাড়া মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। 

এই মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ মঙ্গলবার রাতে উল্লিখিত ২ মাতব্বরকে গ্রেপ্তার করে সিরাজগঞ্জ আদালতের মাধ্যমে বুধবার (২৮ এপ্রিল) জেল হাজতে পাঠিয়েছে। 

এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক কুমার দাস (পিপিএম) জানান, তারা অভিযোগ দায়েরের পরপরই ওই গ্রামের মাতব্বরদের ধরতে পুলিশ বাড়ি বাড়ি রেড করে। পরে মঞ্জু ও মেছের আলীকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়। অপর আসামীদের গ্রেপ্তারের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ এবং একই সঙ্গে মনিরুলের পরিবারের ওই গ্রামে সুরক্ষা ও নিরাপত্তা দেবার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।