কামারখন্দে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বই বিলি করেন কলেজ ছাত্র ইমরান

কামারখন্দে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বই বিলি করেন কলেজ ছাত্র ইমরান

কামারখন্দ ডেস্কঃ



কখনো লাইব্রেরিয়ান আবার কখনো পাঠক তৈরীর খুঁজে বেড়ান  বাড়িতে বাড়িতে ,আবার লাইব্রেরির সদস্য তৈরী করেন, বিলিয়ে বেড়ান বই ইমরান হোসাইন।  হাসিমুখে পাঠকদের হাতে তুলে দেন বই। ফেরত নিচ্ছেন পড়ে শেষ করা পুরোনোটি।

তিনি চান হিংসামুক্ত সচেতন সমাজ। প্রত্যেক ঘরে ঘরে তৈরী হোক আলোকিত সুশিক্ষিত সচেতন নাগরিক। গত কয়েক মাসে এই অভিনব প্রচেষ্টায় তিনি তৈরি করার চেষ্টা করছেন পাঠক। ইমরান হোসাইনের বাড়ি সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার চরগাড়াবাড়ি গ্রামে। তিনি মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে। জমিজমাও নেই তেমন। বাবা সোলায়মান হোসেন ছিলেন প্রবাসী। বড় ভাইয়ের আয়ের ওপরই নির্ভরশীল তাদের সংসার।

তিনি ধুনচি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করে বর্তমান তিনি ডাঃশামস উদ্দিন সালেমা মেমোরিয়াল কলেজে উচ্চমাধ্যমিকে অধ্যায়ন করছেন। 

সাহিত্যের বই পড়া শুরু করেন মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে। করেন লেখালেখিও ইতোমধ্যে  তার লেখা ওপার বাংলা কলকাতাতে প্রকাশ হয়েছে। ২০২১ সালের অমর একুশে গ্রন্থ মেলায় তার দুইটি যৌথ কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

গ্রামের বড় ভাই জাকির মাহির কাছ থেকে ‘গল্পগুচ্ছ’ নিয়ে পড়া শুরু করেন। তারপর শরৎচন্দ্র, বেগম রোকেয়া, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়, শওকত ওসমানসহ কয়েকজন লেখকের কিছু বই পড়া হয়।

ইমরান হোসাইন বলেন,  কখনো ভাবিনি সাহিত্য লেখায় মননিবেশ করবো। ২০১২ সালে জাকির মাহি ভাইয়ের নিজ উদ্যোগে এলাকায় পাঠাগার স্থাপন ও ২০১৮ সালে এসে সেই পাঠাগারের একজন নিষ্ঠাবান লাইব্রেরীয়ান হতে পেরে তিনি নিজেকে একজন সফল বইপ্রেমী ও সাহিত্যপ্রেমী বলে গণনার যোগ্য করতে পেরেছেন । এছাড়াও জ্ঞানদীপ পাঠাগারে তার বেশ প্রসিদ্ধি রয়েছে ।

 সাধারণ মানুষকে পাঠাগার মুখি করা ও সদস্যভুক্ত করে পাঠকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বই দিয়ে সবার মধ্যে সাহিত্যের আলো ছড়িয়ে দেবার মতো অনিন্দ্য কাজের সঙ্গে তিনি ওতোপ্রোতো ভাবে জড়িয়ে আছেন । তিনি মনে করেন শুধু শিক্ষিত নয় মানুষকে মানবিক ও আত্মনির্ভরশীল হয়ে বেড়ে উঠতে হবে।

নতুন লেখকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, একজন লেখক হতে হলে আগে একজন ভালো পাঠক হতে হবে । মানুষ থেকে মানুষের সৃষ্টি, বই থেকে বইয়ের সৃষ্টি, লেখা থেকে লেখার সৃষ্টি সুতরাং বলা যায় একজন ভালো মানুষ ও ভালো লেখক হতে হলে বই পড়ার বিকল্প নেই ।

 

​​​​​​আ-মা-কা/সি-এক্স