ঠাকুরগাঁওয়ে স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামীর আত্নহত্যা

ঠাকুরগাঁওয়ে স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামীর আত্নহত্যা

সারাবাংলা ডেস্কঃ



ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের কাজী বস্তি গ্রামে স্ত্রী আসমাকে (৩০) গলা কেটে হত্যার পর বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন স্বামী সাইদুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় সালন্দর ইউনিয়নের বরুনাগাঁও নামক এলাকায় একটি পুকুর থেকে স্ত্রীর গলাকাটা ও নিজ বাড়ি থেকে স্বামীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সাইদুর রহমানের দুই বউ। এ কারণে সংসারে প্রায় সময় ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকত।

সাইদুল ও ছোট স্ত্রী আসমা দুজনে হোটেলে কাজ করতেন। হোটেলে কাজ করা নিয়ে কথা কাটাকাটি হলে আসমাকে হোটেলে কাজ করতে বাধা দিতেন সাইদুর।

এদিকে বড় স্ত্রীর সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া লেগে থাকত তাদের। সংসারে অশান্তি ঝগড়াঝাটি সইতে না পেরে আসমাকে গলাকেটে হত্যা করে বিষপান করে সাইদুর আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করছেন স্থানীয়রা।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভীরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, স্বামী-স্ত্রী দুজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ঘটনার কোনো কারণ বলা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুটো ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন না পেলে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।  

এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঠাকুরগাঁও জেলা পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম।