তাড়াশে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত ৩৫

তাড়াশে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত ৩৫

তাড়াশ ডেস্কঃ



সিরাজগঞ্জের তাড়াশে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর দু পক্ষের মধ্যে প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের গুরুতর ১০ জনসহ আহত ২৫ জন আহত হয়েছে। 

আহতদের তাড়াশ উপজলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় পাঁচজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজেলার মাগুড়াবিনাদ ইউনিয়নের দিঘী সগুনা বাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি  নিয়ন্ত্রনে আনে। 

আহতরা হলেন, দিঘী সগুনা গ্রামের মৃত আফজারের ছেলে গাজী আফছার (৫৫), জুবার হাদীর ছেলে ফিরোজ (৪০), খয়বার আলীর ছেলে ইমরান (২১), মৃত হবির আলীর ছেলে ইদ্রিস আলী (৫০), আ: জব্বারের ছেলে ফারুক (৩৫), মৃত হরফ আলী মন্ডলের ছেলে জুব্বার (৫৫), মৃত মফিজের ছেলে আলহাজ আ: হালিম (৩০), আনোয়ার হোসেনের ছেলে জাহাঙ্গীর (৪০), আজাহার  আরশাফুল (২৫), মৃত আব্দুর রহমানর ছেলে বাবলু (৫০)। 

পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দিঘী সগুনা গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে ইদ্রিস ও আফসার গ্রুপের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর দ্বন্দ চলে আসছিল। এর আগেও তাদের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এরই জেরে রবিবার সকালে দুই দলের সমর্থকদের মধ্য কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় বিষয়টি গ্রামবাসীর মধ্য ছড়িয়ে পড়লে প্রায় শতাধিক গ্রামবাসী দু'দলে বিভক্ত হয়ে লাঠি, সোটা, রাম দা, হাসুয়া, লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ১০ থেকে ১৫ টি দোকান ঘরে হামলা চালিয় ভাঙচুর করে। এতে উভয় পক্ষের ৩৫ জন আহত হয় তারমধ্যে গুরুতর ১০ জন আহত ১০ জন।

তাড়াশ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: ফজলে আশিক বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। এ বিষয় অভিযোগ পেলে আইনগতভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।