নামের আগে আলহাজ্ব না লেখায় ৫ জনকে কুঁপিয়ে জখম

নামের আগে আলহাজ্ব না লেখায় ৫ জনকে কুঁপিয়ে জখম

সারাবাংলা ডেস্কঃ



নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার ধারাবারিষা ইউনিয়নে হালখাতার কার্ডে নামের আগে আলহাজ না লেখায় নারীসহ ৫ জনকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে ওই ইউনিয়নের দাদুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর অবস্থায় তারা গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।

আহতরা হলেন, রিক্তা খাতুন, আনোয়ার হোসেন, সাহাবুল ইসলাম, আবু জাফর আলী ও অন্তঃসত্ত্বা নারী সুফিয়া বেগম।

জানা গেছে, দাদুয়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের সিট কাপড়ের দোকানে বকেয়া ছিল প্রতিবেশী আমিনুল হকের। সেই বকেয়ার হালখাতার কার্ডে নামের আগে আলহাজ না লেখায় তার স্বজনদের ক্ষোভ ছিল দোকানি আনোয়ার হোসেনর ওপর। সেই সূত্র ধরেই বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে দাদুয়া গ্রামের জিয়ারুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, কামাল হোসেন, রঞ্জু ইসলাম, কিরণ, স্বপন আলীসহ প্রায় ৩০ জন লোক ধারালো অস্ত্র নিয়ে দোকানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেন। তারা দোকানে থাকা নগদ টাকাসহ মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যান। প্রতিবাদ করতে গেলে তারা ভুক্তভোগী ব্যক্তিদের কুপিয়ে রক্তাক্ত করে চলে যান।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল মতিন বলেন, এখনো অভিযোগ পায়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে।