ব্রাহ্মনবাড়িয়ায় দই টক হওয়ায় বরযাত্রীর মারধরে কনের বাবার মৃত্যু

ব্রাহ্মনবাড়িয়ায় দই টক হওয়ায় বরযাত্রীর মারধরে কনের বাবার মৃত্যু

সারাবাংলা ডেস্কঃ



ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় বরযাত্রীদের খেতে দেওয়া দই টক হওয়ায় বরপক্ষের লোকজনের মারধরে কনের বাবা ইকবাল হোসেনের (৫০) মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (৬ অক্টোবর) রাতে কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কনের বাবার মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়নের গণকমুড়া গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে ইকবাল হোসেনের মেয়ের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী বিষ্ণাউড়ি গ্রামের পারভেজ মিয়ার বিয়ের দিন ধার্য ছিল। বরযাত্রী আসতে দেরি হওয়ায় তাদের খাবার আলাদা করে রাখা হয়। পরবর্তীতে বরযাত্রী এলে তাদেরকে খাবার দেওয়া হয়। খেতে বসে দুজন বরযাত্রী দই টক হয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে বিয়ে বাড়ির সবাই মিলে বিষয়টি মীমাংসা করে দেন। এরপর বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়।

নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, বুধবার রাত ১০টার দিকে গ্রামের বাজারে চা খেতে গেলে কনের বাবা ইকবাল হোসেনকে বরপক্ষের কয়েকজন যুবক দই টক হওয়া নিয়ে আবারও কটু কথা শোনান। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে ওই যুবকরা ইকবাল হোসেনকে মারধর করেন। এতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাকে উদ্ধার করে কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর ভূইয়া বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) বিকেলে এসব তথ‌্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘বিয়ের খাবার নিয়ে বরপক্ষের মারধরে কনের বাবার মৃত্যু হয়েছে এমন একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তবে নিহতের শরীরে আঘাতের গুরুতর কোনো চিহ্ন দেখা যায়নি। পোস্ট মর্টেমের রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত বলা সম্ভব হবে।’

অভিযোগের ভিত্তিতে আসামিদের গ্রেপ্তার কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলেও জানান ওসি আলমগীর ভূইয়া।