বেলকুচিতে মোবাইল গেম খেলতে না দেয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর আত্নহত্যা!

বেলকুচিতে মোবাইল গেম খেলতে না দেয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর আত্নহত্যা!

বেলকুচি ডেস্কঃ



সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে মোবাইল গেম খেলতে বারন করায় মুরছালিন (১৬) নামের এসএসসি পরীক্ষার্থী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।  

শুক্রবার (৪ জুন) বিকেলে উপজেলার ভাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের চন্দনগাঁতী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।  

নিহত স্কুল ছাত্র চন্দনগাঁতী গ্রামের শাহ আলমের ছেলে। সে সরকারি সোহাগপুর এসকে পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। 

এ নিয়ে মোবাইল গেম খেলতে না দেয়ায় ৫ দিনের ব্যবধানে সিরাজগঞ্জে ২ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটলো।

এর আগে একই কারণে উল্লাপাড়ায় মো. রাফি (১৪) নামে অষ্টম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্র গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। 

এলাকাবাসী  জানায়, শুক্রবার (৪ জুন) বিকেলে শাহ আলমের বড় ছেলে মুরছালিনকে নিজের ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় স্বজনরা। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয়রা আরো জানান, তিন দিন আগে তার মা মোবাইলে গেম খেলা নিষেধ করা ও মোবাইল কেড়ে নিলে ভাত খাওয়া বন্ধ করে দেয় মুরছালিন। পরে মার সাথে মনমালিন্য হয়। এরপর শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে খবর পেয়ে ৭১ টিভির বেলকুচি উপজেলা সংবাদদাতা উজ্জ্বল অধিকারী ও জাতীয় দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার বেলকুচি উপজেলা প্রতিনিধি আব্দুর রাজ্জাক বাবু ঘটনাস্থলে সংবাদ সংগ্রহে যান। 

সাংবাদিকরা তাদের নিউজ সংগ্রহের জন্য ভিডিও ও ছবি তোলার চেষ্টা করলে নিহতের চাচাসহ অন্যান্যরা হামলা চালায় এবং মোবাইল মাটিতে ফেলে দেয়। ভিডিও করতে গেলে বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি সহ অশালীন কথা বার্তা বলেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (বেলকুচি সার্কেল) সিদ্দিক আহমদ জানান, চন্দনগাঁতী গ্রামে মুরছালিন নামে এক স্কুলছাত্র গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহের সুরুতহাল করে। তবে এ নিয়ে কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি তাই পরিবারের কাছেই লাশ বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। সংবাদ সংগ্রহের সময় হামলার ঘটনা দু:খজনক বলেও জানান তিনি।