শাহজাদপুরে বাঁশের সাঁকোয় ১০ গ্রামের ৫০ হাজার মানুষের ঝূঁকিপূর্ণ চলাচল

শাহজাদপুরে বাঁশের সাঁকোয় ১০ গ্রামের ৫০ হাজার মানুষের ঝূঁকিপূর্ণ চলাচল

শামছুর রহমান শিশির (শাহজাদপুর)



সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার খুকনি ইউনিয়নের সাংকিভাঙ্গা বিলের ওপর গত ৩০ বছরেও নির্মিত হয়নি একটি সেতু। ফলে ১০ গ্রামের প্রায় ৫০ হাজার মানুষকে বাধ্য হয়ে বাঁশের সাঁকোর ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। দেখার কেউ নেই। 

এলাকাবাসী জানায়, গত ৪ বছর আগে উপজেলার খুকনি ইউনিয়নের সাংকিভাঙ্গা বিলের তীরবর্তী কাইজা, সড়াতৈল, রুপসী, চংটার চড়, বাঁশবাড়িয়া, খুকনি, নতুন ঘাটাবাড়ি ও ঝাউপাড়াসহ পার্শ্ববর্তী ১০ গ্রামের ৫০ হাজার মানুষের চলাচলের সুবিধার্থে ব্যাক্তি উদ্যাগে সেখানে একটি বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হয়। 

এরপর থেকে এ বাঁশের সাঁকো দিয় ঝূঁকি নিয়ে চলাচল কর আসছে এলাকাবাসী। সরু এ সাঁকোর দু’পাশ থেকে একসাথে লোকজন পারাপার হতে পাড়ছে না। এ ক্ষেত্রে একপাশের লোকজন পারাপার না হওয়া পর্যন্ত অন্যপাশ থেকে সাঁকোতে কেউ উঠতে পারে না। 

এছাড়া, সংর্কীর্ণ ও ঝূঁকিপূর্ণ এ বাঁশের সাঁকোর ওপর দিয়ে এলাকাবাসীকে নিত্যদিন ঝূঁকি নিয়ে সব ধরনর মালামালও পরিবহন করত হচ্ছে।

এলাকাবাসীর অভিযাগ, ‘ভাটার সময় অনকেই সেতু নির্মানের আশ্বাস দেন। কি, ভাটা চলে গেলেই সেতু নির্মানের কথা তারা ভুলে যান। ফলে কাযের কাজ কিছু হচ্ছে না। আমাদের মতো চির অবহেলিত জন মানুষের ঝুঁকিমুক্ত চলাচল এলাকাবাসীর প্রাণের এ দাবীটি এভাবেই গত ৩০ বছর ধরে উপেক্ষিত রয়ে গেছে।’

এ বিষয় কাইজা গ্রামের মর্তুজা বলেন, ‘অতি সম্প্রতি ১ তাঁত শ্রমিক মাথায় চাল নিয়ে পারাপারর সময় সাঁকোর বাঁশ ভেঙ্গে খাদে পড়ে যায়। এছাড়া এলাকার বয়স্ক ও কোমলমতি শিশুদের পারাপারের জন্যও বাঁশের এ সাঁকোটি তীব্র ঝঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।’

ঘাটাবাড়ি গ্রামের কোরবান আলী ও শাহ আলমসহ বেশ কয়েকজন গ্রামবাসী জানান, ‘খুকনি বাজার থেকে রিক্সা-ভ্যানে পণ্য আনা নেওয়া করতে তাদের প্রায় ১০ কিলোমিটার রাস্তা ঘুরে আসতে হয়। এতে করে অর্থ ও সময়ের অপচয় হচ্ছে। ঝূঁকি, অর্থ ও সময়ের অপচয় হ্রাসে জনগুরুত্বপূর্ণ এ স্থানে একটি সেতু নির্মাণে সরকারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

এ বিষয়ে খুকনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুল্লুক চাঁন বলেন, ‘এলাকাবাসীর দাবীর এ বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযাদ্ধা আলহাজ্ব হাসিবুর রহমান স্বপনকে জানানো হয়েছে। সেখানে অচিরই সেতু নির্মাণ করা হবে বলে তিনি আশ্বাস দিয়েছেন।