৯৫ ফাউন্ডেশনের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন, সভাপতি প্রকৌশলী রায়হান ও সম্পাদক ছাব্বির আহমেদ

৯৫ ফাউন্ডেশনের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন, সভাপতি প্রকৌশলী রায়হান ও সম্পাদক ছাব্বির আহমেদ

কাজিপুর ডেস্ক



সিরাজগঞ্জের কাজীপুরে ৯৫ ফাউন্ডেশনের ২৮ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটি গঠিত হয়েছে। গত মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) এডহক কমিটি স্বাক্ষরিত একটি প্রেস নোটে বিষয়টি প্রকাশ করা হয়। এতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন প্রকৌশলী রায়হান ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন ছাব্বির।

২০২২-২০২৩ মেয়াদের কমিটিতে যারা রয়েছেন- সভাপতি প্রকৌশলী আবু রায়হান, সিনিয়র সহ সভাপতি প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল নোমান (জাকির), সহ সভাপতি হাফিজুর রহমান, সোলায়মান হোসেন সোহাগ, প্রকৌশলী আবু সাদাত সায়েম, শাব্বির আহমেদ তামিম, সাধারণ সম্পাদক ছাব্বির আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক এস. এম সরোয়ার-এ আলম, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল হাসান, কোষাধ্যক্ষ রুবেল কাওছার, সহ কোষাধ্যক্ষ খাইরুল হাবিব আনোয়ার, দপ্তর সম্পাদক মোনারুল ইসলাম ভোলা, সহ দপ্তর সম্পাদক শুভাষ চন্দ্র হালদার, প্রচার, প্রকাশনা ও গণসংযোগ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক আবু হেলাল, সহ-ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন (বিএস), ধর্ম সম্পাদক লিয়াকত আলী, সহ ধর্ম সম্পাদক রাশিদুল ইসলাম, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক লোকমান হাকিম, সহ সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মঞ্জরুল ইসলাম রিপু, ক্রীড়া সম্পাদক সোলায়মান হোসেন বাবু, সহ ক্রীড়া সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শ্রী পথিত কুমার মন্ডল, কার্যকরী সদস্য সালমা পারভীন রনি, রোমানা আফরোজ সজ্জিতা, জাকিয়া শারমিন সুরভী, দিলরুবা শারমিন।

জানা গেছে, গত বছরের ১৯ নভেম্বরে সিরাজগঞ্জের পৌর কনভেনশন হলে সংগঠনটির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে কমিটি গঠনের পর থেকে নির্বাচিত সদস্যসহ অধিকাংশ সদস্যের মধ্যে পূর্বের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। যার বহিঃপ্রকাশ গত ডিসেম্বরের ১০ তারিখে ধানমণ্ডির স্টার কাবাব রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত নির্বাহী কমিটির সভা। শুরুতেই ৩ জন নির্বাচিত প্রতিনিধি বন্ধুত্বের সম্পর্ক অটুট রাখতে না পারার দায় স্বীকার করে পদত্যাগ করেন। পরে নির্বাহী কমিটির সদস্যরা একে একে তাদের পদত্যাগ পত্র সভাপতি বরাবর দাখিল করেন। এরপর গত ২৬ ডিসেম্বর নির্বাহী কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে ৫ সদস্যদের একটি এডহক কমিটি গঠন করা হয়। 

উল্লেখ্য, পরবর্তী নির্বাহী কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে সিলেকশনের মাধ্যমে গঠন করা হবে। সংগঠনের মধ্যে অস্থিরতা সৃষ্টিকরীদের চিহ্নিত করে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।